কবুতরের গোটা রোগ
Popular posts কবুতর টিপস রোগ ও চিকিৎসা

মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ ও তার চিকিৎসা

মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ ও তার চিকিৎসা। এই পোস্ট এ আজ আপনাদের জন্য মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ ও তার চিকিৎসা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো। আশা করি এতে যারা সখ বা বাণিজ্যিক ভাবে কবুতর পালন করেন তাদের উপকারে আসবে।

কিভাবে বুঝবেন  মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ হয়েছে ?

মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ একটি বাহ্যিক দৃশ্যমান রোগ। সাধারণত কবুতরের পশমহিন অঙ্গ যেমন চোখ, মাথা, ঠোঁট ,পা ও গলা তে ছোট করে গোল গোটা উঠে। ধিরে ধিরে গোটা বড় হতে থাকে। নিচের ছবিগুলো দেখুন আরও ভালোভাবে বুঝতে পারবেন।




মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ একটি ভাইরাস জনিত রোগ। poxvirus নামক ভাইরাস  এই রোগের সংক্রামক। সাধারণত মশার মাধ্যমে এই ভাইরাস টি প্রাণীর দেহে ছড়াই। মশার কামড়ে কবুতরের দেহে এই ভাইরাস ছড়াই এবং গোটা  রোগ হয়। মশা ছাড়াও অন্য পোকা-মাকড় এর কামড় থেকেও এই  ভাইরাস ছড়াই এবং গোটা রোগ হয়।

মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগের চিকিৎসা  কি ?

২ থেকে ৪ জোড়া আক্রান্ত কবুতরের জন্য

# ২ চা চামুচ পানের চুন

# ২/৩ গ্রাম পটাশ

যে সকল কবুতরের এই রোগ হবে সেসব কবুতরকে আলাদা করে রাখতে হবে। পটাশ ও চুনের ( পান খাবার) মিশ্রণ এর সাথে সামান্য পরিমান পানি দিয়ে পেস্ট ( মিশ্রণটি যেন মাখা মাখা হয় সে অনুযায়ী পানি মিশাতে হবে।)  করে কোন cotton pick অথবা ম্যাচ এর কাঠি তে মিশ্রণ আলতো করে লাগিয়ে কবুতরের সংক্রামক স্থানে লাগিয়ে দিতে হবে। পেস্ট লাগানোর পর কবুতরকে ৫/১০ মিনিট রোঁদে রাখুন। চোখ ও মুখের ভিতর পেস্ট লাগাবেন না।  এই রকম এক দুই বার লাগালেই হবে। আশা করা যায় মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ সেরে যাবে। নিচের ছবিগুলো দেখুন আরও ভালোভাবে বুঝতে পারবেন।

Help others by Sharing...Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterShare on LinkedIn

3 thoughts on “মশার কামড় থেকে কবুতরের গোটা রোগ ও তার চিকিৎসা”

  1. সাদা চুনা আর সবুজ পায়খানা হচ্ছে। খাবার খায় না শুধু ঝিমাচ্ছে।

  2. vayolet 2% lagaben ghaye
    ar khub beshi poriman pox hole ei chikitsha kaje ashbe na tokhon antibayotik dite hobe

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *